মেনু নির্বাচন করুন

মিরকামারী আর্দশ উচ্চ বিদ্যালয়

<p>পঞ্চাশের দশকে মিরকামারী গ্রামে একটি প্রাথমিক শিক্ষা ও একটি কুরআন শিক্ষার মক্তব প্রতিষ্ঠিত হয়। যা পরবর্তীতে সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ও দাখিল মাদ্রাসা হিসাবে উন্নতী হয়েছে। এদুটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে অত্র গ্রামসহ আশে পাশেল কয়েকটি গ্রামের ছেলে/মেয়েদের শিক্ষা লাভের একটি সুযোগ সৃষ্টি হয়। সে সময়ে মানুষের মধ্যে শিক্ষার অনুরাগ তেমন একটা ছিলনা । ফলে প্রাথমিক শিক্ষা লাভেো অধিকাংশ ছেলে ও মেয়ে বঞ্জিত হয়েছে। এভাবে ষাট এবং সত্তরের দশক ধরে দীর্ঘ সময় কোন রকম প্রাথমিক শিক্ষা চলে এসেছে। পর্যায়ক্রমে এলাকার কিছূ বিদ্যোৎসায়ী অভিবাক ছেলে মেয়েদের মাধ্যমিক &nbsp;ও উচ্চ শিক্ষা দানের জন্য শহরে অবস্থিত স্কুল কলেজগুলোতে পাঠাতে থাকেন। এক সময় এ সকল শিক্ষিত যুবকরা এলাকায় একটি মাধ্যমিক শিক্ষা প্রাতিষ্ঠান গড়ে তোলার প্রয়োজনীয়তা উপলব্ধি করেন। শিক্ষার উন্নয়ন ছাড়া এলাকার উন্নয়ন সম্ভব নয়- এ বাস্তবতা থেকেই যুবকরা স্কুল প্রতিষ্ঠার ব্যাপারে সক্রিয় হয়ে উঠে। সে সময় এ সকল শিক্ষানুরাগী যুবকদের সংগঠিত করে অত্র মিরকামারী গ্রামের কৃতি সন্তান প্রয়াত প্রতিষ্ঠাতা প্রধান শিক্ষক মরহুম আজিজুর রহমান স্যার গ্রামের বিদ্যোৎসায়ী যুবক ও জনসাধারণের সহযোগিতা নিয়ে এই ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান করেন। &nbsp;প্রাথমিক বিদ্যালয়ের একটি ভবনে উচ্চ বিদ্যালয়ের একাডেমিক কার্যক্রম চলতে থাকে এবং ০১/০১/১৯৭০ হতে অত্র বিদ্যালয়ের যাত্রা শুরু হয়। পর্যায়ক্রমে বিদ্যালয়ের নিজস্ব ভবন তৈরী ও শিক্ষা বোর্ডের অনুমোদন লাভের দাপ্তরিক কার্যক্রম পরিচালিত হতে থাকে এবং ১৯৭২ সালে অষ্টম শ্রেণী, ১৯৭৩ সালে নবম শ্রেণী এবং ১৯৭৪ সালে দশম শ্রেণী খোলার অনুমতি &nbsp;লাভ করে। ১৯৭৫ সালে শিক্ষা বোর্ডের অনুমোদন সাপেক্ষে প্রথম ব্যাচ এস,এস,সি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে এবং শতভাগ পাশের কৃতিত্ব অর্জন করে। অতি দ্রূত সময়ের মধ্যে বিদ্যালয়টির সুনাম চতুর্দিকে ছড়িয়ে পড়ে এবং একটি ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হিসাবে প্রতিষ্ঠা লাভ করে। বর্তমানে অত্র বিদ্যালয়ে ৭৫০ জন ছাত্র/ছাত্রী লেখাপড়া করে।</p>


Share with :

Facebook Twitter